মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২১
Home District শীতকালে সুন্দরবন বেড়াতে যাওয়ার তিনটি আদর্শ জায়গা

শীতকালে সুন্দরবন বেড়াতে যাওয়ার তিনটি আদর্শ জায়গা

৩৯২ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারি সুন্দরবন বেড়াতে যাওয়ার আদর্শ সময়। পুজোর আগে থেকেই সুন্দরবনের বিভিন্ন হোটেল, রিসর্ট, কটেজে বুকিং শুরু হয়। শীত পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই এখানে পর্যটকদের ভিড় বাড়ে। কলকাতার বাসিন্দা হলে উইকএন্ডে দিঘা, মন্দারমনির মতো সুন্দরবনেও ঘুরতে যেতে পারেন। সুন্দরবন মানেই শুধু রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার নয় – বিশ্বের বৃহত্তম এই ম্যানগ্রোভ অরণ্যের রূপও দেখার মতো। ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের তকমা পাওয়া সুন্দরবনের ১০,০০০ বর্গ কিলোমিটারের মধ্যে প্রায় ৬০ শতাংশ রয়েছে বাংলাদেশে। বাকি অংশ ভারতে। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অংশ নিয়ে এপারের সুন্দরবন গঠিত। এক ঝলকে দেখা নেওয়া যাক সুন্দরবনের কিছু গন্তব্য, যেখানে এই শীতে অনায়াসে যেতে পারেন।

সুন্দরবন ন্যাশনাল পার্ক

সুন্দরবন ন্যাশনাল পার্ক হল সুন্দরবনের অন্যতম সেরা পর্যটনস্থল। সুন্দরবন টাইগার রিজার্ভের মধ্যে ১৯৭৩ সালে এটি গড়ে তোলা হয়। পার্কের কোর এরিয়াতে পর্যটনমূলক বা বাণিজ্যিক কার্যকলাপ নিষিদ্ধ। পার্কের বাফার জোনের একটি বড় অংশে রয়েছে সজনেখালি ওয়াইল্ডলাইফ স্যাংচুয়ারি। এখানে প্রতিবছর শীতে প্রচুর পাখি আসে। তাই পর্যটকরা এখানে ভিড় জমান। কুমীর ছাড়াও এই জঙ্গলে রয়েছে নানা বাঁদর, বুনো শুয়োর ও হরিণের মতো নানা প্রাণী।

বকখালি

দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানা ব্লকের বকখালি সুন্দরবনের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র। গবেষকদের দাবি, পরাধীন ভারতের লেফটেন্যান্ট গভর্নর স্যার অ্যান্ড্রু ফ্রেজার (১৯০৩-১৯০৮) বঙ্গোপসাগরের উপকূলে এই এলাকাটি আবিষ্কার করেন। তার এই অবদানকে স্বীকৃতি দিতে স্থানীয় একটি এলাকার নাম দেওয়া হয় ফ্রেজারগঞ্জ, যা আজও ওই নামে পরিচিত। বকখালির সমুদ্রতট খুব প্রশস্ত না হলেও উইকএন্ড কাটানোর জন্য অন্যতম আদর্শ জায়গা। এখানে অসংখ্য হোটেল রয়েছে। দামও বেশি নয়। পরিবার নিয়ে বেড়াতে গেলে আগে থেকে বুকিং করে রাখাই শ্রেয়। একা বা শুধুমাত্র বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে গেলে, বকখালিতে পৌঁছে হোটেল বুক করতে পারেন। সমুদ্রতটে মাছ ভাজা সহ নানা মুখরোচক খাবারের দোকান রয়েছে। বকখালিতে গেলে পাশ্ববর্তী হেনরি আইল্যান্ডে ঘুরে আসারা চেষ্টা করুন। এই জায়গাটি একটু নির্জন। যারা একান্তে নিজের সঙ্গে সময় কাটাতে পছন্দ করেন, এটি তাদের জন্য আদর্শ জায়গা।

মৌসুনী দ্বীপ

সুন্দরবনের পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গত কয়েক বছরে মৌসুনী দ্বীপ বেশ পরিচিত হয়ে উঠেছে। এখানে বালিয়াড়াতে বেশ কিছু টেন্ট আছে। সমুদ্রতট এখান থেকে বেশি দূরে নয়। এখানে বেড়াতে গেলে অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজমের একটা স্বাদ পেতে পারেন। তবে, এখানে যাওয়ার আগে অবশ্যই বুকিং করে যাবেন। হাতে গোনা মাত্র কয়েকটি টেন্ট আছে। ফলে সব সময় তা উপলব্ধ থাকে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সুন্দরবনে ৪২৮ প্রজাতির পাখি রয়েছে

শুধু রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার আর কুমীর নয়। সুন্দরবনে অনেক প্রজাতির প্রাণী দেখা যায়। এদের মধ্যে অন্যতম হল পাখি। সুন্দরবনে মোট ৪২৮ প্রজাতির...

সিকিমের নাকুলা পাস সীমান্তে ভারত-চিন সেনার হাতাহাতি

লাদাখ সেক্টর ভারত-চিন সেনার মধ্যে বিগত কয়েকদিন ধরে একটা চাপা উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। এবার সিকিমের কাছে চিন সীমান্তে সরাসরি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল...

ফ্রায়েড চিকেন আর পিৎজার যুগেও প্রাসঙ্গিকতা হারায়নি হরিদাস মোদক

বিশ্বজিৎ মান্না আজ যা আছে, কাল হয়তো থাকবে না! বা বদলে যাবে। এটাই নিয়ম। ঠিক যেমন আমাদের প্রিয় শহর...

ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ: প্রথম দুটি ম্যাচে মাঠে দর্শক থাকবে না

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে আসন্ন টেস্ট সিরিজের মাধ্যমে দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর ভারতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু হবে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চারটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে...

Recent Comments

error: Content is protected !!