শুক্রবার, আগস্ট ১৪, ২০২০
Home feature করোনা আতঙ্কটাই এখন হয়ে উঠেছে কোটি কোটি টাকার ব্যবসার রসদ

করোনা আতঙ্কটাই এখন হয়ে উঠেছে কোটি কোটি টাকার ব্যবসার রসদ

১০৪ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

এই মাসের শুরুর দিকের কথা। মায়ের জ্বর। বেশ কয়েকদিন। প্যারাসিটামল, ক্যালপলেও সারেনি। অতএব, বাড়ির সবাই বিষয়টা নিয়ে বেশ চিন্তিত।

এই মরসুমে আর যাই অসুখ হোক না কেন, করোনা আতঙ্কের মধ্যে এখন কারুর জ্বর হলেই একটা যেন ত্রাহি ত্রাহি রব উঠছে। আগের রাতে খবর পেয়ে আমি পৌঁছে গেলাম। ভোরবেলা উবেরে উঠলাম। লকডাউনে শুনশান গোটা কলকাতা ঘুরে বেলঘরিয়া থেকে পৌঁছোলাম টালিগঞ্জে।

প্রথমেই যে বিষয়টা নিয়ে বিপাকে পড়লাম তা হল ডাক্তার। কোথাও কোনো চিকিৎসক নেই। অধিকাংশ চেম্বার বন্ধ। টালিগঞ্জে একাধিক করোনা পজিটিভ রোগী পাওয়া গিয়েছে। ফলে কড়াকড়ি বেশি। জ্বর হয়েছে শুনলেই প্রথমে চিকিৎসক বলছেন করোনা পরীক্ষা করাতে হবে। অথচ কোভিড-১৯ এর কোনো উপসর্গই নেই রোগীর মধ্যে।

এই অবস্থায় ফোন ঘাঁটতে ঘাঁটতে অনলাইনে চিকিৎসকের পরামর্শ প্রদানকারী একটি মোবাইল অ্যাপের সন্ধান পেলাম। চিকিৎসক সল্টলেকের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমের সঙ্গে যুক্ত। ১৫ মিনিটের কনসাল্টেশনের জন্য নিলেন ৬৫০ টাকা। সেসব হওয়ার পর জানালেন কোভিড নিয়ে চিন্তা নেই। মায়ের সেই উপসর্গ কিছু নেই। ওষুধ প্রেসক্রাইব করার পাশাপাশি ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া পরীক্ষা করাতে বললেন। সমস্ত পরীক্ষা করানোর পর জানা গেল, লিভারের সমস্যা থেকে জ্বর হয়েছে। মাইনর প্রবলেম। মিটে গিয়েছে সব কিছু।

কিন্তু কনসাল্টেশনের সময় চিকিৎসক যে কথাটি বলেছিলেন, তা উল্লেখ করা প্রয়োজন। ‘এখন করোনা করোনা করে চারিদিকে যা হচ্ছে তাতে বেশি বেশি আতঙ্ক ছড়াচ্ছে’, বললেন ওই চিকিৎসক। সেই সঙ্গে তার পরামর্শ, টিভি দেখুন। কিন্তু নিউজ চ্যানেল একদমই দেখবেন না। তাতে আপনার মানসিক সমস্যা বাড়তে পারে।

টিভিতে ইদানিং যদি বেশ কিছু বিজ্ঞাপন দেখে থাকেন, তাহলে আপনার কাছে স্পষ্ট হবে, প্রায় অধিকাংশ বিজ্ঞাপনেই গ্রাহকের কাছে পৌঁছতে একটা হাতিয়ার হিসেবে করোনাকে ব্যবহার করা হচ্ছে। যেমন সেদিন টিভিতে ঘর পরিষ্কার করার এক লিকুইড প্রস্তুতকারী সংস্থার বিজ্ঞাপন দেখছিলাম। বিজ্ঞাপনের বক্তব্য, ‘অন্যান্য জীবানু এবং ভাইরাসের মতো করোনাকেও কাবু করতে পারে এই লিকুইড।’ অর্থাৎ ওই লিকুইড দিয়ে আপনি বাড়ির মেঝে পরিষ্কার করলে আপনার বাড়িতে করোনা থাকবে না। বহু পুরানো সাবান প্রস্ততকারী সংস্থার জীবানুনাশক স্প্রে এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার সেদিন চোখে পড়ল একটি ওষুধের বিপণীতে। সেলসম্যান রীতিমতো আমার দিকে এগিয়ে এসে ১৫ মিনিট ধরে সেলস পিচ দিলেন। এবং ওই পণ্যটি ক্রয় করতে নানাভাবে আমার সামনে যুক্তি খাড়া করলেন। আরও অবাক হওয়ার মতো বিষয় হল, রান্নার তেল তেকে চুলের তেল বা হলুদ বা মশলার বিজ্ঞাপন, সর্বত্রই একই বুলি- আমাদের প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন, সুস্থ থাকুন। অমুক মশলায় রান্না করুন, আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

মাস্ক, স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ এখন কোটি কোটি টাকার ইন্ডাস্ট্রিতে পরিণত হয়েছে। আতঙ্কের ব্যাপার হল, সাধারণ মানুষের ভয়কে পাথেয় করেই চলছে অধিকাংশ এই শিল্প। আমি না, এই কথা বলছেন খোদ চিকিৎসকদের একাংশ। তারা কেউ হয়তো প্রকাশ্যে একথা স্বীকার করবেন না। তবে তারা স্পষ্টভাবে একথা বলেছেন, করোনার ভয়কে পুঁজি করেই এখন অনেক ব্যবসা চলছে। এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী চাইছেন, এই ভয় থাকুক। এই ভয় থাকলে, তাদের ব্যবসা আরও ফুলে ফেঁপে উঠবে।

তাদের সঙ্গে তাল মিলিয়েছে কিছু বাজারি মিডিয়া সংস্থা। যাদের একমাত্র কাজ করোনা নিয়ে মনগড়া তথ্য এবং ভিত্তিহীন খবর প্রকাশ করা। এক শ্রেণীর মিডিয়া কিছু না জেনে, না বুঝেই প্রচার করে যাচ্ছে, করোনাভাইরাস চিনের উহানের ল্যাবরেটরিতে তৈরি হয়েছে। খবর যাচাই না করে ফলাও করে ছাপা হচ্ছে। এই সব কিছুর মধ্যে যে গুরুত্বপূর্ণ বার্তাটা কেউ প্রচার করছে না তা হল, করোনা মানেই মৃত্যু নয়। প্রত্যেক বছর ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু, অপুষ্টি, অনাহার, আত্মহত্যায় অনেক বেশি মানুষ মারা যায়। আমরা বা বাজারি মিডিয়া সেসবের খবর রাখে না।

করোনা আক্রান্ত হওয়াটা এখন একটা স্বাভাবিক ব্যাপারে পরিণত হয়েছে। কমিউনিটি স্প্রেড বা গোষ্ঠী সংক্রমণ নিয়ে সরকারি তরফে কোনো স্পষ্ট ঘোষণা করা হয়নি। তবে যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে আগামী দিনে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লে তাতে অবাক হওয়ার মতো কিছু থাকবে না। এখনও পর্যন্ত করোনায় যাদের মৃত্যু হয়েছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তাদের অন্যান্য অসুখ ছিল। বা উপসর্গ দেখা দিলেও প্রথমে তারা অবহেলা করেছেন।

করোনা পজিটিভ হলেও এখন বাড়িতে থেকেই সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হওয়া যায়। করোনায় আক্রান্ত হলে প্রথমেই যে কাজটা করতে হবে তা হল নিজেকে আইসোলেট করা। তারপর ১৪ দিন এই অবস্থায় থাকতে হবে। চিকিৎসকদের পরামর্শ, এই সময় বাড়ির সাধারণ খাবার খেলেই চলবে। অ্যানিমেল প্রোটিন এবং শাকসব্জি খাওয়া প্রয়োজন। সেই সঙ্গে ভিটামিন সি রয়েছে এরকম ফল খাওয়া উচিত। আর সেই সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কিছু ওষুধ খেতে হবে। সম্পূর্ণ কাজটাই বাড়িতে থেকে করা যায়। হাসপাতালে ভরতি হওয়ার প্রয়োজন নেই। সাকসেস রেট ৯০ শতাংশেরও বেশি।

মাস্ক, স্যানিটাইজার বিক্রির ভিড়ে এই গুরুত্বপূর্ণ বার্তাটা বেমালুম চেপে দেওয়া হচ্ছে। তার বদলে চারিদিকে তৈরি করা হচ্ছে আতঙ্কের পরিবেশ। ২০ টাকার আলু বিক্রি হচ্ছে ২৫-৩০ টাকায়। ৪০ টাকা কেজি চালের দাম বেড়ে হয়েছে ৪৮ টাকা। নিত্য প্রয়োজনীয় প্রায় সব জিনিসের দাম বেড়েছে। এবং সর্বত্র এক যুক্তি- করোনা। ইংল্যান্ডে করোনাভাইরাসে ৩০ লক্ষাধিক মানুষ আক্রান্ত। মৃত্যু হয়েছে প্রায় পঞ্চাশ হাজার। তবুও সেই দেশেই চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে বায়ো সিকিওর পরিবেশে শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। টেস্ট সিরিজে মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এরপর আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওডিআই সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড। তারপর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্ট এবং টি-২০ সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেই সমস্ত ম্যাচ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

যে দেশে এই কয়েকদিন আগেও করোনা নিয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল, তারা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করার  মতো চ্যালেঞ্জে সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছে। আগামী মাস থেকে শুরু হচ্ছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল)। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে শুরু হবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। অর্থাৎ বার্তাটা স্পষ্ট, ভাইরাস থাকবে। রাতারাতি গায়েব হবে না। এটাকে সঙ্গে নিয়েই চলতে হবে। কিন্তু তাতে অযথা আতঙ্কের কিছু নেই। সামান্য কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে আমরা করোনাকে পরাজিত করতে পারব। করোনা মানেই মৃত্যু নয়। বিজ্ঞাপনী বার্তার ফাঁদে পা দেবেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

আইপিএলের প্রস্তুতিতে মাঠে নামলেন এমএস ধোনি

প্রতিযোগিতা আদতে ২৯ মার্চ থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে কোভিড-১৯ এর কারণে সেটা অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়। ভারতে এই ভাইরাসের...

স্ত্রীকে ঈদের উপহার হিসেবে মার্সিডিজ গাড়ি দিলেন শাকিব আল হাসান

বাংলাদেশের অলরাউন্ডার শাকিব আল হাসান তার স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরকে ঈদ উপলক্ষে একটি মার্সিডিজ বেঞ্জ গাড়ি উপহার দিয়েছেন। আপাতত এই দম্পতি মার্কিন...

করোনা আতঙ্কটাই এখন হয়ে উঠেছে কোটি কোটি টাকার ব্যবসার রসদ

বিশ্বজিৎ মান্না এই মাসের শুরুর দিকের কথা। মায়ের জ্বর। বেশ কয়েকদিন। প্যারাসিটামল, ক্যালপলেও সারেনি। অতএব, বাড়ির সবাই বিষয়টা নিয়ে...

ফেসবুক টাইমলাইনে নেই দিন গোনার অপেক্ষা, এখন শুধু করোনা আপডেট

অঙ্কিতা পাল ও মা মা! এবার দুগ্গা পুজো হবে না! ও মা বলো না! দুগ্গা ঠাকুর এবার আসবে না?

Recent Comments

error: Content is protected !!