বুধবার, ডিসেম্বর ২, ২০২০
Home feature অর্ধশিক্ষিত অভিনেতা এডুকেশন অ্যাপের বিজ্ঞাপনে, তবে আপনার যত রাগ তনিস্কের উপর

অর্ধশিক্ষিত অভিনেতা এডুকেশন অ্যাপের বিজ্ঞাপনে, তবে আপনার যত রাগ তনিস্কের উপর

১৪২ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

সমস্যাটা বাজার অর্থনীতি বা মার্কেট ইকনমি নয়। আপনার-আমার পছন্দের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে উত্তর। লকডাউন এবং করোন পরবর্তী সময়ে সবই অনলাইন। খাবার থেকে শিক্ষা, সবেতেই ভরসা অনলাইন ভিত্তিক পরিষেবা। আর সেই সুযোগে বলিউডের এক অভিনেতা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনাকে বলে দিচ্ছেন কীভাবে আপনার সন্তানের পড়াশুনা সামলাবেন। কীভাবে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করলেই আপনার সন্তানের স্কুল থেকে টিউশন, সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। এমন একটা বার্তা দেওয়া হয়েছে, যেখানে স্কুলের থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে প্রাইভেট টিউশন।

ব্যাপারটা ভাবুন। ধরা যাক আপনি একজন শিক্ষক। স্কুল বা কলেজে পড়াচ্ছেন। কিন্তু আপনাকে হঠাৎ করে বলা হল আপনি আগামীকাল থেকে ডাক্তারের চেম্বারে বসবেন, রুগী দেখবেন, ওষুধ দেবেন ইত্যাদি। অবাক হচ্ছেন তো?

অবাক হওয়ারই কথা। সবাই যদি সব কাজ পারতো, তাহলে স্পেশালাইজেশন বলে কথাটা থাকত না। একজন চিকিৎসকের কাজ চিকিৎসা করা, শিক্ষকের কাজ শিক্ষা দেওয়া। কিন্তু বর্তমানের বাজার অর্থনীতিতে প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রি করার সময় এই যুক্তিকে স্টেপ আউট করে পাঠানো হয়েছে ময়দানের বাইরে।

একজন অভিনেতার কাজ অভিনয় করা। তিনি যদি শিক্ষা বিশেষজ্ঞ হতেন তাহলে তিনি অভিনয় করতেন না। অ্যাপটা যেহেতু শিক্ষা বিষয়ক, তাহলে সেটির বিজ্ঞাপনে কোনো শিক্ষা বিশারদকে কেন ব্যবহার করা হবে না? যে অভিনেতার নিজের শিক্ষা সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট ধারণা নেই, তাকে দিয়ে বলানো হচ্ছে কীভাবে আপনার সন্তানকে শিক্ষা দেবেন! ওয়াহ! ওয়াহ! কী লজিক! আমরা এটা ভাবতেই পারি না যে শিক্ষা সংক্রান্ত এই অ্যাপের বিজ্ঞাপনে অমর্ত্য সেন না হলেও অন্তত দেশের প্রথম সারির পরিচিত কোনো শিক্ষাবিদের মুখ থাকতে পারে।

কিন্তু সেসব আমরা বুঝি না। তনিস্কের বিজ্ঞাপনে ইন্টারকাস্ট ম্যারেজের প্রসঙ্গ দেখলে আমরা তেলে-বেগুনে জ্বলে উঠি। ভাঙচুর চালাই তাদের শোরুমে। এর থেকে একটা বিষয় প্রমাণিত হয়, গ্রাহক বা কনজিউমার হিসেবে আমরা কতটা অশিক্ষিত এবং সচেতনতার কতটা অভাব রয়েছে।

যেকোনো পণ্য বা পরিষেবা গ্রহণ করার আগে সবার আগে যে জিনিসটা খতিয়ে দেখা উচিত যে সেটা কতটা কার্যকরী। যে টাকা খরচ করছেন, তার বিনিময়ে আপনি যে পরিষেবা পাচ্ছেন, সেটা কী যথাযথ? যেকোনো সচেতন ক্রেতা তাই করবেন। উন্নত দেশগুলিতে, যেখানে কনিজিউমারদের মধ্যে ন্যূনতম একটা শিক্ষা রয়েছে, সেখানে পণ্য বিক্রির ক্ষেত্রে এই পন্থা মেনে চলা হয়। যে কারণে এখনও পর্যন্ত আইফোনের বিজ্ঞাপনে হলিউড বা বলিউডের কোনো তারকাকে দেখতে পাননি। কারণ আইফোন নির্মাতারা জানেন, তাদের পণ্যের যা গুণ, সেটা ফলাও করে বলার জন্য কোনো বিজ্ঞাপনী মুখের প্রয়োজন নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

আগামী বছরের আগস্টের মধ্যে ৩০ কোটি ভারতীয়কে কোভিড-১৯ টিকা প্রদানের পরিকল্পনা

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন আজ বলেছেন যে ২০২১ সালের আগস্টের মধ্যে ৩০ কোটি ভারতীয়কে কোভিড-১৯ প্রতিরোধের টিকা প্রদান করা হবে। এমনই পরিকল্পনা...

ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সম্বন্ধে ১১টি তথ্য

ম্যানগ্রোভ অরণ্য শুধু সুন্দরবনই নয়, পৃথিবীর অন্যান্য গ্রীষ্ম প্রধান অঞ্চলেও দেখা যায়। তবে সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ হল বিশ্বের বৃহত্তম। যে পরিবেশে ম্যানগ্রোভ বেড়ে...

নির্বিচারে ম্যানগ্রোভ নিধনে বিপদের মুখে সুন্দরবনের জীববৈচিত্র

আইন রয়েছে। রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। তা সত্ত্বেও সুন্দরবনে নির্বিচারে চলছে ম্যানগ্রোভ ধ্বংসলীলা। প্রশাসনের তৎপরতায় মাঝে মাঝে অভিযান চলে। থেমে যায় বেআইনী কারবার। কিন্তু...

মটন বিরিয়ানি থেকে লুচি-ছোলার ডাল, কলকাতার খাবারে মুগ্ধ হয়েছিলেন দিয়েগো মারাদোনা!

শুধু করোনার তাণ্ডবই নয়, নানা কারণে ২০২০ একটি ‘আনলাকি’ বছর হিসেবে ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। এমনটাই দাবি অনেকের। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে...

Recent Comments

error: Content is protected !!