মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২১
Home District উদ্বেগের প্রহর গুণছে সুন্দরবন, ৩১ মার্চ পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

উদ্বেগের প্রহর গুণছে সুন্দরবন, ৩১ মার্চ পর্যন্ত পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

২৭৬ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

করোনাভাইরাসে এখন গোটা দেশে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। বাদ যায়নি সুন্দরবনও। বিশেষত ভিনরাজ্যে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকদের নিয়ে চিন্তা বাড়ছে। কেরল, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যে সুন্দরবনের অনেকেই শ্রমিকের কাজ করতে যান। তাদের অনেকে ইতিমধ্যে বাড়িতে ফিরে এসেছেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা বা হোম আইসোলেশনে রাখা হচ্ছে না। ফলে আতঙ্ক বাড়ছে।

এই সময় পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে হিঙ্গলগঞ্জের বাসিন্দা পল্লব রায় বলেন, করোনার জেরে সুন্দরবন এলাকায় আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। যারা ভিনরাজ্যে কাজ করতে গিয়েছিলেন, তাদের অনেকেই বাড়িতে ফিরে এসেছেন। কিন্তু তাদের কোনো শারীরিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে না। তারা দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

এই সময়ের ওই প্রতিবেদনে বসিরহাটের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক দেবব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ভিনরাজ্যে থেকে যারা এসেছেন, জরুরী প্রয়োজন না থাকলে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে না। তবে গ্রামে গ্রামে গিয়ে আশাকর্মীরা খোঁজখবর নিচ্ছেন। কারও জ্বল, কাশি হলে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে বলা হচ্ছে।

৩১ মার্চ পর্যন্ত সুন্দরবনে প্রবেশ নিষেধ

এদিকে করোনাভাইরাস নিয়ে তৈরি হওয়া আপৎকালীন পরিস্থিতির জেরে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলে বকখালি, ফ্রেজারগঞ্জ, হেনরি আইল্যান্ড, ভগবতপুর কুমির প্রকল্প, গোবর্ধনপুর, মৌসুমী দ্বীপের মতো আকর্ষণীয় স্থানগুলিতে পর্যটকরা পা রাখতে পারবেন না। শুধু পর্যটকরাই নন, স্থানীয় প্রশাসনের তরফ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, ৩১ মার্চ পর্যন্ত খেলা, মেলা, সভা, মিছিল, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না। গঙ্গাসাগরে ভিন রাজ্য থেকে আগত পুণ্যার্থীদের শারীরিক পরীক্ষার জন্য লট নম্বর আটের জেটিঘাট এবং কচুবেড়িয়ায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মোতায়েন করা হয়েছে। এই সময় পত্রিকায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, সুন্দরবনে করোনাভাইরাসের মোকাবিলার জন্য সম্প্রতি কাকদ্বীপে একটি প্রশাসনি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সুন্দরবন উন্নয়নমন্ত্রী মন্টুরাম পাখিরা, সাগরদ্বীপের বিধায়ক বঙ্কিম হাজরা, পাথরপ্রতিমার বিধায়ক সমীর জানা, কাকদ্বীপের মহকুমাশাসক শৌভিক চট্টোপাধ্যায়, এসডিপিও অনিল রায়, এছাড়া জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর ও পুলিশ আধিকারিকরা।

আয়লার পরই পেটের দায়ে সুন্দরবনের অনেক বাসিন্দা কেরল, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করার জন্য রওনা হয়েছিলেন। তবে করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক দেখা দেওয়ার পর তাদের অনেকে ইতিমধ্যে বাড়িতে ফিরে এসেছেন। তাদের সকলেরই কাকদ্বীপ মহকুমা হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে এই সময়ের প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে। এদিকে সুন্দরবন উন্নয়নমন্ত্রী মন্টুরাম পাখিরা ওই প্রতিবেদনে বলেন, আমরা সরকারিভাবে সমস্ত বন্দোবস্ত করছি। করোনাভাইরাস নিয়ে সচেতনতার পাশাপাশি জেলার হাসপাতালগুলিতে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। গুজব ছড়াবেন না। কোনো সমস্যা দেখা দিলে হাসপাতালে চলে আসুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সুন্দরবনে ৪২৮ প্রজাতির পাখি রয়েছে

শুধু রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার আর কুমীর নয়। সুন্দরবনে অনেক প্রজাতির প্রাণী দেখা যায়। এদের মধ্যে অন্যতম হল পাখি। সুন্দরবনে মোট ৪২৮ প্রজাতির...

সিকিমের নাকুলা পাস সীমান্তে ভারত-চিন সেনার হাতাহাতি

লাদাখ সেক্টর ভারত-চিন সেনার মধ্যে বিগত কয়েকদিন ধরে একটা চাপা উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। এবার সিকিমের কাছে চিন সীমান্তে সরাসরি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল...

ফ্রায়েড চিকেন আর পিৎজার যুগেও প্রাসঙ্গিকতা হারায়নি হরিদাস মোদক

বিশ্বজিৎ মান্না আজ যা আছে, কাল হয়তো থাকবে না! বা বদলে যাবে। এটাই নিয়ম। ঠিক যেমন আমাদের প্রিয় শহর...

ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ: প্রথম দুটি ম্যাচে মাঠে দর্শক থাকবে না

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে আসন্ন টেস্ট সিরিজের মাধ্যমে দীর্ঘ প্রায় এক বছর পর ভারতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু হবে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চারটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে...

Recent Comments

error: Content is protected !!