সোমবার, মে ১৭, ২০২১
Home District কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের থাবায় দুই মৎসজীবী

কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের থাবায় দুই মৎসজীবী

৪০৬ Views

সুন্দরবনে ফের রয়্যাল বেঙ্গলের আক্রমণ। গত বুধবার রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের আক্রমণে এক মৎসজীবী গুরুতর আহত হয়েছে। আর একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

টেলিগ্রাফের একটি রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, বুধবার সন্ধ্যায় পীরখালি ফরেস্ট এরিয়াতে সৌমেন রায় নামে এক মৎসজীবী বাঘের আক্রমণে গুরুতরভাবে জখম হয়েছেন। অন্যদিকে বেনেফেলিতে অতুল বৈদ্য নামে এক ব্যক্তিকে বাঘ জঙ্গলের ভিতরে টেনে নিয়ে গিয়েছে বলে খবর। বনদপ্তরের তরফ থেকে তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। সৌমেন এবং অতুল কাঁকড়া ধরতে জঙ্গলে ঢুকেছিলেন।

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণ কোনো নতুন ঘটনা নয়। গত বছর বাঘের আক্রমণে সুন্দরবনে কমপক্ষে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ঝড়খালি কোস্টাল থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, সৌমেন সহ আরও পাঁচজন নৌকায় করে শনিবার কাঁকড়া ধরে বেরিয়েছিলেন। তারা যখন বাড়ি ফিরছিলেন, তখন পীরাখালির কাছে এক মৎসজীবীকে আক্রমণ করে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। ওই নৌকায় ছিলেন সৌমেনের ভাই পরিতোষ। তিনি বলেন, আমরা যখন বাঁধের ধার দিয়ে যাচ্ছিলাম তখন বাঘ আমাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। হঠাৎ করে আক্রমণ হওয়ায় কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই দাদাকে টার্গেট করে ওই রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। আমরা বাঘের থাবা থেকে তাকে ছাড়ানোর চেষ্টা করেছিলাম। তবে ততক্ষণে দাদাকে ক্ষতবিক্ষত করে দিয়েছে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। অন্যদিকে গত সোমবার কাঁকড়া ধরার জন্য বেনেফেলি জঙ্গলে ঢুকেছিলেন কুলতলি-কাঁটামারির বাসিন্দা অতুল। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অতুলের সাথে আরও অনেকে ছিলেন। কাঁকড়া ধরার পর বুধবার যখন তারা বাড়ির দিকে ফিরছিলেন, তখন তাদের আক্রমণ করে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। বাঘের থাবায় পড়েন অতুল। তাকে টেনে, হিঁচড়ে জঙ্গলে নিয়ে যায় বিশাল আকৃতির বাঘ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, অতুলের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তার মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আম্ফান, লকডাউনের কারণে সুন্দরবনের অর্থনীতির বেহাল অবস্থা। ভিনরাজ্যে যারা শ্রমিকের কাজ করতেন, তাদের অনেকেই এখন গ্রামে ফিরে এসেছেন। সুন্দরবনের বাসিন্দাদের রোজগারের অন্যতম উপায় হল মাছ ধরা। এই পেশায় ঝুঁকি থাকলেও তাদের কিছু করার থাকে না। মাঝ ধরার পাশাপাশি জঙ্গলে মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করতে গিয়েও অনেকে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের আক্রমণে প্রাণ হারান। বনদপ্তরের নিয়ম অনুযায়ী, বিনা অনুমতিতে জঙ্গলের নির্দিষ্ট এলাকা ছাড়া কোর এরিয়াতে প্রবেশ নিষেধ। কিন্তু অভিযোগ, অনেক সময় একটু বেশি রোজগারের আশায় লুকিয়ে জঙ্গলের কোর এরিয়াতে মৎসজীবীরা ঢুকে পড়েন। আর অধিকাংশ ক্ষেত্রে তখনই ঘটে অঘটন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে ফের মৃত্যু

শাহীন বিল্লা, সাতক্ষীরাসুন্দরবনে মধু আহরণ করতে গিয়ে বাঘের আক্রমণে রেজাউল ইসলাম নামে এক মৌয়াল নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৪ মে) বিকেলে বাংলাদেশের পশ্চিম...

দৈনিক সুন্দরবনের সাংবাদিককে মারধর

দৈনিক সুন্দরবন ওয়েবসাইটের এক সাংবাদিককে মারধর করার অভিযোগ উঠল কুলতলিতে। কোভিড বিধি না মেনে শুক্রবার কুলতলীর রামকৃষ্ণ আশ্রমের কাছে জেটিঘাটে অনেকে ভিড়...

বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিতে হবে: মোদিকে চিঠি বিরোধীদের

ভারতে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ক্রমশই উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে। হাসপাতালো রুগীর জায়গা নেই। অক্সিজেনের অভাব। ভ্যাকসিনের অভাব। সব মিলিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদেরও রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছে।...

অতিমারির অন্ধকারে ঈদে চাঁদ যেন আশার আলো

সীতাংশু ভৌমিক, ফরিদপুর (বাংলাদেশ) প্রতিবছর ঈদ আসে, পরিযায়ী শ্রমিক-কর্মজীবী মানুষেরা স্বজনদের কাছে ফিরে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ থেকেই...

Recent Comments

error: Content is protected !!