বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৫, ২০২১
Home country গ্রামে প্রায় রোজ ঢুকছে হাতি, আতঙ্কে বাসিন্দারা

গ্রামে প্রায় রোজ ঢুকছে হাতি, আতঙ্কে বাসিন্দারা

২৯৮ Views

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি

বুধবার সকালে খড়িবাড়িতে ট্রেনের ধাক্কায় হাতির মৃত্যু হয়েছে। তবে এই প্রথমবার যে এলাকায় হাতি ঢুকল, এমনটা নয়। বারবার লোকালয়ে বুনো হাতির হানায় দিশেহারা উত্তরবঙ্গের শিলিগুড়ি সংলগ্ন বাতাসি এলাকার মানুষ। গত শুক্রবার রাতে খাবারের খোঁজে হাতির দল বাতাসির অন্ধরুজোত ও জীবনসিং জোতে হানা দেয়। হাতির দল তিনটি বাড়ি ভেঙ্গে দেয়। বিঘার পর বিঘা শস্যের ক্ষতি করে। ক্রমাগত হাতির হানায় আতঙ্কিত এলাকাবাসী। হাতি নিয়ন্ত্রণে বনকর্মীদের কিংবা সরকারের কোন সক্রিয় উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ উঠেছে। লোকালয়ে হাতির হানা নিয়ন্ত্রণে দ্রুত সক্রিয় উদ্যোগ গ্রহণ না করা হলে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। হাতি নিয়ন্ত্রণের এবং ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছে বনদপ্তর।

বাতাসির অন্ধরুজোতে বাঁধাকপির খেত তছনছ করে দিয়েছে হাতির দল। নিজস্ব ছবি।

৩০-৪০ টি হাতির একটি দল শুক্রবার রাতে টুকুরিয়া বনাঞ্চল থেকে বেরিয়ে বুড়াগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা দিয়ে বাতাসির অন্ধরুজোত ও জীবনসিং জোত এলাকায় ঢোকে। মাঠের ধান, বিভিন্ন সবজি, গ্রামের কলা গাছ, বাঁশ গাছ, সুপুরি গাছ খাবার পর খাবারের খোঁজে তিনটি বাড়ি ভেঙ্গে তছনছ করে দেয় হাতির দলটি। হাতির দলটি অন্ধরুজোতের বিজয় মল্লিক, কার্তিক বৈরাগী ও রতিকান্ত বর্মনের বাড়ি গুড়িয়ে দেয়। এছাড়াও এলাকার একটি ধানকলে হামলা চালায় হাতির দলটি। তিনটি বাড়িতেই ঘরের ভেতরে থাকা বস্তা ভর্তি ধান সাবাড় করে হাতির দলটি। খাবারের খোঁজে শোবার ঘরে হাতি ঢুকে পড়ে হাতি। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পায় বেশ কয়েক জন। এদের মধ্যে পার্বতী মণ্ডল বলেন, “রাত দুটো নাগাদ ৩০-৪০টি হাতি বাড়িটিকে ঘিরে ফেলে।ঘরে ঢুকে ধান খাওয়া শুরু করে। পালতে গিয়ে উঠোনে পরে যাই। দুহাত দূরত্বের জন্য প্রাণে বেঁচে যাই।” বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর মধ্যে কৃষ্ণ বাড়ৈ, সনাতন মণ্ডল, নারায়ন মণ্ডল, মাদান মণ্ডল, অমূল্য মণ্ডল প্রমুখ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কদিন যাবৎ এলাকার মানুষ হাতির হানার আতঙ্কে রাতভর ঘুমাতে পারছে না। প্রায় প্রতিদিন রাত ৯টার পর এলাকার দখল নেয় বুনো হাতির দল। ঘর ভেঙে মজুদ করা ধান, মাঠের বিঘার পর বিঘা সবজি সবার করছে হাতির দল। দিনের পর দিন একই ঘটনা ঘটছে অথচ বনের হাতি নিয়ন্ত্রণে বন দপ্তর কিংবা সরকারের কোন সক্রিয় উদ্যোগ নেই। অনেক সময় হাতির হামলা হলে রাত ফোন করা সত্ত্বেও কোন বনকর্মী এলাকায় আসেন না বলেও অভিযোগ করেন বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। এভাবে চলতে থাকলে যে কোনদিন প্রাণহানির মত ঘটে পারে বলে তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেন। এলাকার সাধারণ মানুষের প্রাণ ও ফসল বাঁচাতে সরকার দ্রুত উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

এদিকে রাতভর তান্ডব চালানোর পর হাতির পালটি ভোর পাঁচটা নাগাদ টুকুরিয়া বনাঞ্চলে ফিরে যায়।সারা রাত ফোন করেও কোন বনকর্মীরা এলাকায় না আসার বিষয়টি স্বীকার করেন টুকুরিয়া বনাঞ্চলের বিট অফিসার অশেষ পাল। তিনি বলেন, হাতির দলটি প্রতিদিন দু-তিনটি ভাগে ভাগ হয়ে গ্রামে হানা দিচ্ছে। বন বিভাগের একটি গাড়ি ও গুটি কয়েক বনকর্মী নিয়ে সব এলাকায় একসঙ্গে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তিনি জানান, একই সময়ে বুড়াগঞ্জের কিলাঘাটা এলাকায় হাতির একটি দল পৃথকভাবে হানা দেওয়ায় বাতাসি এলাকায় যাওয়া সম্ভব হয় নি। অশেষবাবু জানান, গাড়ি ও অতিরিক্ত কর্মীর আবেদন উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। দুর্বল পরিকাঠামো সত্ত্বেও তারা হাতিগুলোকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান। তিনি আবেদনের ভিত্তিতে ক্ষতিগ্রস্তদের বন দপ্তরের পক্ষ থেকে ক্ষতি পূরণ দেওয়ার আশ্বাস দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

স্যামসনের অবিশ্বাস্য ব্যাটিং, তবুও শেষ হাসি হাসল পাঞ্জাব

স্কোরবোর্ড বলছে, আইপিএল ২০২১-এর চতুর্থ ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালসকে ৪ রানে হারিয়ে দিয়েছে পাঞ্জাব কিংস। তবে সেটা দেখে ম্যাচের আসল ছবি বোঝা যাবে...

ধর্নায় বসবেন মমতা

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক প্রচারের উপর 24 ঘন্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। সেই...

মানুষ মরে এভাবেই, কেউ খোঁজ রাখে না

বিশ্বজিৎ মান্না ধরুন আপনি সকালে ঘুম থেকে উঠে, বাজারের থলে হাতে নিয়ে বেরোলেন। আপনার বাড়ির লোক বা আপনি কী...

ফের ক্ষমতায় দিদি, তবে বিজেপির আসন বাড়বে: বলছে সমীক্ষা

বিগত কয়েক বছরে পশ্চিমবঙ্গে অন্যতম বিরোধী দল হিসাবে বিজেপি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। কেন্দ্রের শাসক দলের দাবি, রাজ্যে এবার তারাই ক্ষমতায় আসতে চলেছে।...

Recent Comments

error: Content is protected !!