রবিবার, জুন ২০, ২০২১
Home country এক লিটার দুধে এক বালতি জল, সেটাই খেল ৮১ পড়ুয়া

এক লিটার দুধে এক বালতি জল, সেটাই খেল ৮১ পড়ুয়া

২৪১ Views

ফের খবরের শিরোনামে উত্তরপ্রদেশের স্কুল। রাজ্যের শোনভদ্র এলাকায় একটি প্রাথমিক স্কুলে এক বালতি জলে এক লিটার দুধ মিশিয়ে ৮১ জন পড়ুয়াকে খাওয়ানোর অভিযোগ উঠল। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য দেব পাতিয়ার অভিযোগ, শোনভদ্র জেলায় সালাইবানওয়া এলাকার ওই স্কুলের পড়ুয়াদের মিড ডে মিলে অপুষ্টিকর খাবার দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, মিড ডে মিলের মেনু অনুযায়ী, স্কুলের শিশুদের তেহরি (এক ধরনের ভাত) এবং দুধ দেওয়ার কথা। তবে পড়ুয়াদের খাওয়ানোর জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ রাঁধুনিকে মাত্র এক লিটার দুধ দিয়েছিল। এত কম পরিমাণ দুধ ৮১ জন পড়ুয়ার মধ্যে বিতরণ করার জন্য তাতে এক বালতি জল মেশানো হয়। ওই স্কুলে অতীতেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে।

কিছুদিন আগেও উত্তরপ্রদেশের একটি স্কুলে মিড ডে মিলে পড়ুয়াদের নিম্নমানের খাবার দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। জানা যায়, রাজ্যের মির্জাপুরের একটি স্কুলে মিড ডে মিলে পড়ুয়াদের কেবলমাত্র নুন ও রুটি দেওয়া হয়। এই অভিযোগ ঘিরে চাঞ্চল্যের মধ্যেই ফের সামনে এলে শোনভদ্রের এই প্রাথমিক স্কুলের ঘটনা। স্কুলের প্রধান শৈলেশ কানাউজিয়া বলেন, স্কুলে মোট ১৭১ জন পড়ুয়ার নাম নথিবদ্ধ আছে। তবে ওই দিন স্কুলে ৮১ জন পড়ুয়া উপস্থিত ছিল। উভয় স্কুলের জন্য দুধ আনা হয়েছিল। সালাইবানওয়াতে প্রাথমিক স্কুলে যে দুধ পৌঁছায় তার পরিমাণ কত ছিল তা আমি জানতাম না। ওই দুধই মিড ডে মিলের রাঁধুনিকে দেওয়া হয়েছিল। তিনি সেই দুধ পড়ুয়াদের বিতরণ করেছেন।

তবে স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টিকে হালকাভাবে নিচ্ছে না। বেসিক শিক্ষা অধিকারী (বিএসএ) গোরক্ষনাথ প্যাটেল বলেন, বিষয়টি জানার পরই সঙ্গে সঙ্গে আমি ওই স্কুলে গিয়েছিলাম। স্কুলের হেডমাস্টারের কাছ থেকে এই ব্যাপারে বিশদ তথ্য সংগ্রহ করেছি। এই ধরনের গা ছাড়া মনোভাবকে কোনোভাবেই প্রশ্রয় দেওয়া হবে না। এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকরা তদন্ত করে দুদিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেবেন। এই তদন্তে যারাই দোষী প্রমাণিত হবেন, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

ব্লক এডুকেশন অফিসার মুকেশ রাই বলেন, স্থানীয় সূত্রে আমি খবর পেয়েছি যে দুধে জল মিশিয়ে তা ছাত্রছাত্রীদের খেতে দেওয়া হয়েছিল। এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেষ দেওয়া হয়েছে। দোষীদের শাস্তি দেওয়া হবে, যাতে ভবিষ্যতে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

অন্যদিকে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা অজয় রাই বলেন, এমনকি শিশুরাও ঠিকঠাক মিড ডে মিল খেতে পাচ্ছে না। শিশুদের মিড ডে মিল দিতেও সরকার ব্যর্থ হয়েছে। দুধে জল মিশিয়ে সরকারি স্কুলে পড়ুয়াদের খেতে দেওয়াকে প্রহসন ছাড়া আর কি বলব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

আমার স্কুল: পাথরপ্রতিমা আনন্দলাল আদর্শ বিদ্যালয়

ইন্দ্রস্কুল প্রায় সবারই কাছেই প্রিয়। স্কুল এমনই একটি জায়গা যেখানে জীবনের শুরুর দিকে একটা বড় অংশ আমরা কাটাই, অনেক নতুন বন্ধু তৈরি...

ঘোড়ামারা: অভিশাপ না প্রশাসনিক অবহেলা? ক্ষয়িষ্ণু দ্বীপে ভাসমান কিছু প্রশ্ন

বিশেষ প্রতিবেদন লিখেছেন প্রত্যয় চৌধুরীজমি নেই, ঘর নেই, বাড়ি নেই। চারিদিকে শুধু জল আর জল! প্রকৃতি যে এরকম নিষ্ঠুর হতে পারে, তা...

নরহরিপুরে ত্রাণ বিলি

দুই সপ্তাহ হতে চলল, এখনও ইয়াস বিধ্বস্ত সমস্ত এলাকায় ক্ষয়ক্ষতিপূরণ পৌঁছায়নি। দক্ষিণ ২৪ পরগণার বেশ কিছু এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে এখনও বিতরণ করা...

ইয়াস: ক্ষতিগ্রস্ত ঘোড়ামারা, পাথরপ্রতিমা বাজারেও ঢুকেছে জল

আম্ফানের পরেই একটি বিধ্বংসী ঝড়ের সাক্ষী হল সুন্দরবন। গত বছরের আম্ফানের মতো এবারও সাইক্লোন ইয়াসে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। নদীবাঁধ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।সুন্দরবনের...

Recent Comments

error: Content is protected !!