শনিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২১
Home Uncategorized ফেসবুক টাইমলাইনে নেই দিন গোনার অপেক্ষা, এখন শুধু করোনা আপডেট

ফেসবুক টাইমলাইনে নেই দিন গোনার অপেক্ষা, এখন শুধু করোনা আপডেট

৬৩৮ Views

অঙ্কিতা পাল

ও মা মা! এবার দুগ্গা পুজো হবে না! ও মা বলো না! দুগ্গা ঠাকুর এবার আসবে না?

ওরকম হয় নাকি পাগলি মেয়ে? দুগ্গা মা তো তার নিয়মে আসবেই। বছরে একবারই তো তিনি বাপের বাড়ি আসেন। তা কী করে পাল্টে যাবে বল?

কই তাহলে এখনও কেন বাঁশ বাঁধা হচ্ছে না? কাঠামো তৈরি হল না? তুমি মিথ্যে কথা বলছ…..

না রে পাগলি! তাকে তো আসতেই হবে…..সব শুরু হবে দেখিস…..রাত জেগে ঠাকুর শেষ করব আমরা

মা আমি এইবার চোখ আঁকব দুগ্গা মায়ের!

জুলাই মাস পড়তে না পড়তেই পুজোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায় শহর জুড়ে। তিন্নি, বন্যার ফেসবুক টাইমলাইন জুড়ে শুরু হয়ে যায় পোস্টও 100 days left…। হুলুস্থুলু বেঁধে যায় উত্তর কলকাতার কুমোরটুলিতে। ঠাকুর বায়নার জন্য কুমোরটুলির সরু গলিতে গলিতে লাইন লেগে যায় বিভিন্ন বড় বড় ক্লাবের বায়নাদারদের। রথযাত্রায় সেরে ফেলা হয় খুঁটি পুজোটাও। কিন্তু এবছর যেন দাবার চালটা পাল্টে গেল। রথে রাস্তায় বেরোয়নি ছোট্ট তিয়াসার সাজানো রথ। হল না খুঁটি পুজোটাও। এইবার বাতাসে পুজোর আমেজের থেকে বেশি কোভিড-১৯ এর আতঙ্ক। দুর্গা পুজোর সমস্ত রসটুকু নিংড়ে নিয়ে বাতাসে খোশমেজাজে বিরাজ করছেন করোনা মহাশয়। পুজোর যে আর ১০০ দিনও বাকি নেই। কিন্তু এখন ফেসবুক টাইমলাইনে নেই দিন গোনার অপেক্ষা। আছে শুধু করোনা আপডেট।

শুধু মজা আনন্দ, প্যান্ডেল হপিং, বড় বড় রেস্তোঁরা খাওয়া-দাওয়া নয়। গোটা দুর্গা পুজো ঘিরে জড়িয়ে থাকে কিছু মানুষের সংসারের ভাত কাপড়ের যোগানও। কলকাতার এই দুর্গা পুজো গোটা পশ্চিমবঙ্গের প্রায় ১ লাখ মানুষকে কাজের সুযোগ দেয়। তাদের কাছে দুর্গা পুজো সারা বছরের জন্য একটা পুঁজি সংগ্রহের উপায়। প্রতিমা শিল্পী, মন্ডপ সজ্জার কারিগর, আলোকসজ্জার কারিগর, ঢাকি, ডেকরেটর্স, পুরোহিত পাশাপাশি আরও কত কাজের জোগান দেয় এই দুর্গা পুজো। বাঙালির এই শ্রেষ্ঠ উৎসবে মেতে ওঠে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মানুষও। ঘর ছেড়ে সবাই তখন রাস্তায় নেমে পড়ে পুজোর আনন্দ ভাগ করে নিতে। দুর্গা পুজো বনেদি বাড়ির দালান কোঠা পেরিয়ে এখন তা সর্বজনীন। তার সাথে জুড়েছে অনেক অর্থনৈতিক লাভ লোকসানের হিসাব, সেরা পুরস্কার জিতে নেওয়ার ঘোড় দৌড়, স্পনসরশিপ আরও কত আয়ের পথ। মন্ডপের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা নাবালক দুটিও বেলুন বেচে পুজোর একদিন বিরিয়ানি খাওয়ার স্বপ্ন দেখে। কিন্তু এইবছর সব হিসেব পাল্টে দিয়েছে এক মারণ ভাইরাস। গোটা বিশ্ব এখন করোনা ভাইরাসের থাবায়। ভ্যাক্সিনের পরীক্ষানীরিক্ষা চলছে বিভিন্ন দেশে।

তবে দুর্গা পুজো যা কিছু মানুষের পেটে ভাত জোগায়, তা কি বাদ পড়ে যাবে এই বছরের রুটিন থেকে? ইতিমধ্যেই অনেক সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান জাঁকজমক করে পালন হয়নি। দুর্গাপুজো নিয়ে সংশয় থাকলেও আপাতত ফোরাম ফর দুর্গোৎসবের তরফে দুর্গা পুজোর গাইডলাইন প্রকাশ করা হয়েছে ইতিমধ্যে। বড় বড় ক্লাবের পুজোগুলোয় কমিয়ে দেওয়া হয়েছে বাজেটও এবং বাজেটের ৫০ শতাংশ ব্যয় করছে স্যানিটাইজেশন খাতে। তবে বড় বাজেটের পুজো আপাত দৃষ্টিতে অপখাতে ব্যয় মনে হলেও কিছু শিল্পীর রোজগার জুড়ে থাকে এই পুজোগুলোতে। এইবার দুর্গা পুজোর অনিশ্চয়তায় ধুঁকছে গোটা কুমারটুলি, প্যান্ডেলের কারিগর, ঢাকি, আলোকসজ্জার শিল্পী ও অন্যান্য ব্যবসায়ীরা। সাধারণত বাংলা নববর্ষে শুরু হয়ে যায় দুর্গা প্রতিমা গড়া। মৃৎশিল্পীরা ব্যস্ত হয়ে পড়েন উমাকে গড়ে তুলতে। এইসময় ভিড় করেন বিভিন্ন ফটোগ্রাফারও। সেই ভিড়েও ছেদ পড়েছে এইবার। কাদামাটি আর খড়ের গন্ধ ঘুরে বেড়ায় কুমারটুলির বাতাসে বাতাসে। কুমারটুলি এখন উদাসীন। এর উপর আমফানে ক্ষতি হয়েছে অনেক। ধুয়ে গেছে মূর্তি গড়ার মাটি। খাঁ খাঁ করছে কুমোরটুলি। অনিশ্চয়তা কাটিয়ে আশার আলো খোঁজ করছেন অন্যান্যরাও। পুজোর বাঁশ তো বাঁধা হবেই। না হয় দূরত্ববিধি মেনেই পুজো হল। কিন্তু চারদিনের জন্য তো মানুষ আবার হাসবে। মন্ডপে মন্ডপে ভিড় না হলেও পুজো তো হবে। ওদের ঘরে আলো তো ফুটবে।

“আশ্বিণের শারদপ্রাতে বেজে উঠেছে আলোকমঞ্জির…..”  মোমের আলোয় দুগ্গা মায়ের চোখ আঁকা হচ্ছে। ঘুমটা ভেঙে গেল নেহার…..

মা! দুগ্গা পুজো হবে মা। আমি দেখেছি উমা আসছে।

ছবি সৌজন্যে পিক্সাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

আবহাওয়ার পূর্বাভাস: আজ বৃষ্টি হতে পারে

কলকাতা ও তার আশেপাশে আজ, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১-এর আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আকাশ মূলত মেঘলা থাকবে। বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। অ্যাকুওয়েদার ডট কম...

সাইক্লোনের পর ত্রাণের সাথে সুন্দরবনে ঢুকেছে প্রচুর প্লাস্টিক, সঙ্কটে বাস্তুতন্ত্র

করোনা মহামারি, সাইক্লোনের মতো সমস্যায় এমনিতেই সুন্দরবনের নাজেহাল অবস্থা। তার ওপর সেখানে আবার এক নতুন সমস্যা দেখা দিয়েছে। সাইক্লোন...

১ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে যাচ্ছে সুন্দরবন

সুন্দরবনের অর্থনীতির অন্যতম স্তম্ভ হল পর্যটন। তবে বিগত দু বছরে করোনার জেরে বাংলাদেশের সুন্দরবন অঞ্চলে পর্যটন ধাক্কা খেয়েছে। মাঝে খোলা হলেও, করোনার...

সুন্দরবনের অন্যতম স্কুল: বরদাপুর আদর্শ মিলন বিদ্যাপীঠ

ইন্দ্রবরদাপুর আদর্শ মিলন বিদ্যাপীঠের পথ চলা শুরু হয় ১৯৬০ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি। প্রথম দিকে স্কুলটি মাটির দেওয়াল ও টালির চাল দিয়ে তৈরি...

Recent Comments

error: Content is protected !!