বৃহস্পতিবার, মার্চ ৪, ২০২১
Home feature হ্যাপি বার্থডে সৌম্য

হ্যাপি বার্থডে সৌম্য

১৬৩ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

আজ সৌম্যর জন্মদিন। আজকাল কারুর জন্মদিন মনে রাখতে হয় না। ফেসবুক দেখিয়ে দেয়। বেঁচে থাকলে এটা হত ৪১তম জন্মদিন। একটা ছোটখাটো বার্থডে পার্টি। একটু মদ, মাংস। আনন্দ।

অ্যালবার্ট আইনস্টাইনের থিওরি অব রিলেটিভিটি হোক বা মানুষ বা যেকোনো প্রাণীর জীবন, সবই সাময়িক। তফাৎ শুধু সময়ের। একটা কচ্ছপ ৩০০ বছর বাঁচতে পারে। আবার একটা মানুষ তার অর্ধেক সময়ের কম বাঁচতে পারে না। শুরুটা এক হয়, কিন্তু শেষটা নয়। সৌম্যর শেষটাও এরকম হবে, তা কেউ জানত কী!

সৌম্যর সাথে আলাপ অদ্ভুত এক পরিস্থিতিতে। বোধহয় ২০১৪-১৫। শিলিগুড়িতে তখন একটি পত্রিকা দপ্তরে আমি কর্মরত। বিশেষ কারণে এক সিনিয়র সাংবাদিককে ছাঁটাই করা হয়। আর অনেকটা তার জায়গাতেই নিয়োগ করা হয় সৌম্যকে। আমি বরাবর মুখচোরা স্বভাবের। খুব পরিচিত বা পেশাগত কারণ না থাকলে কারুর চোখে চোখ রেখে কথা বলি না। সৌম্যর ক্ষেত্রেও তাই হয়েছিল। ও অফিসে যোগ দেওয়ার পর প্রায় প্রথম এক সপ্তাহ ওর দিকে তাকাতেও ইচ্ছা করেনি। মনে মনে একটা রাগ ছিল। কারণ যে সিনিয়র সাংবাদিককে ছাঁটাই করে হয়েছিল, তার সাথে আমার খুব ভালো সম্পর্ক ছিল। তাই সৌম্যকে দেখলেই মনে মনে ভাবতাম, ‘তুমি কে হে বাপু! উড়ে এসে জুড়ে বসলে।’

বেশ কিছুদিন পর, ভদ্রতার খাতিরে সৌম্যর সাথে প্রথম বাক্যালাপ। আমি জানতাম ও শিলিগুড়ির ছেলে। কিন্তু পরে জানলাম, শিক্ষা থেকে কর্মজীবনের একটা বড় অংশই সে কাটিয়েছে কলকাতা, দক্ষিণবঙ্গে। তার স্ত্রী এবং মেয়ে কলকাতাতেই আমাদের পাড়ার কাছে থাকে! মানে সৌম্যর শ্বশুরবাড়ির পাড়া টালিগঞ্জের কাছেই আমি থাকি। সৌম্য এটা বলার পরই ওর সাথে একটু একটু করে কথাবার্তা শুরু। সিগারেটে কাউন্টার। মাঝরাতে জয়েন্ট। কিংবা শীতের রাতে ছাদের ঘরে কষা মাংস আর ওল্ড মঙ্ক। সাথে গান, লালন সাঁই, পিঙ্ক ফ্লয়েড ইত্যাদি।

সৌম্যর জীবনটাও বোধহয় আইনস্টাইনের রিলেটিভিটির নিয়মে বাঁধা ছিল। ছেলেটা বড্ড ছটফটে। থিতু হতে পারেনি। এক জায়গায় বেশিদিন থাকতে পারেনি। শিলিগুড়ির পত্রিকা দপ্তরে যে বেতনে কাজ করত, তার প্রায় দ্বিগুণ বেতন পেত আগের একটি প্রতিষ্ঠিত পত্রিকা দপ্তরে। কিন্তু মাথায় কী ভুত চাপল, সেটা ছেড়েছুড়ে দিয়ে চলে এল। শিলিগুড়িতেও বেশিদিন স্থায়ী হল না। যার রিপ্লেসমেন্ট হিসাবে আনা হয়েছিল, তার মতোই সৌম্যকে ছাঁটাই করা হল। সৌম্য সেখান থেকে চলে গেল ভিলাই। তখন আমি কলকাতায়। একদিন হঠাৎ ফোন। সেটাই বোধহয় ওর সাথে আমার শেষ কথা। ২০১৮ নাগাদ। বলল, ভিলাইয়ের একটা স্কুলে আর্ট টিচার হিসাবে কাজ করছে। বেতন বেশ ভাল। ভালো আছে। সুখে আছে। ক্রিসমাসে মেয়েকে দেখতে কলকাতায় আসবে। এসেও ছিল। একই শহরে আমরা ছিলাম। অবশ্য আমি তখন টালিগঞ্জে নয়, শহরের একদম উত্তর প্রান্তে শিফ্ট করেছি। সময় এবং দূরত্বের জন্য আর দেখা হয়নি। ইচ্ছে ছিল, কফি হাউসে যাব। একটু ব্ল্যাক কফি আর সাথে একটা জয়েন্ট। হয়নি। ঠিক আছে, পরের বার না হয় হবে।

এভাবেই চলছিল বেশ কিছুদিন। তারপর হঠাৎ এক দুপুরে মন খারাপ করা ফোন। সৌম্য সুইসাইড করেছে! ঘটনা হল, সৌম্যর মতো ছেলেরা কোনোদিনও সুইসাইড করে না। সদা হাস্য মুখের পিছনে একটা বেদনা লুকিয়ে রাখার চেষ্টা করে ঠিকই, তবে যারা লালন সাঁইয়ের ভক্ত, তারা মানসিক দিক থেকে এতটাও দুর্বল হতে পারে না। পরজন্মে সম্পূর্ণভাবে এখনও বিশ্বাস জন্মায়নি। তবে মনে করি, সৌম্য এখনও আছে। কোথাও না কোথাও। প্রেসিডেন্সি, কলেজস্ট্রিট, কফি হাউজ, টালিগঞ্জ, শিলিগুড়ি, বাঘাযতীন পার্ক, বিট্টুর ছাদ, বিধান মার্কেট, নেতাজী কেবিনে বা সুভাষপল্লীতে চিলেকোঠার ওই ঘরে। হ্যাপি বার্থডে সৌম্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

ফের অস্বস্তিতে বঙ্গ বিজেপি, কোকেন কাণ্ডে এবার গ্রেফতার রাকেশ সিং

মাদক মামলায় গ্রেফতার করা হল বিজেপি নেতা রাকেশ সিংকে। মঙ্গলবার গভীর রাতে পূর্ব বর্ধমানের গোলসি থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এছাড়া পুলিশের...

কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের থাবায় দুই মৎসজীবী

সুন্দরবনে ফের রয়্যাল বেঙ্গলের আক্রমণ। গত বুধবার রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের আক্রমণে এক মৎসজীবী গুরুতর আহত হয়েছে। আর একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা...

পুদুচেরির লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পদ থেকে সরানো হল কিরণ বেদিকে

পুদুচেরির লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কিরণ বেদিকে। মঙ্গলবার রাতে রাষ্ট্রপতি ভবনের তরফ থেকে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করা হয়েছে।...

রাধুবাবুর মাটন বা চিকেন কোর্মা ট্রাই করতেই হবে!

গৌরব মুখার্জীআমাদের কলকাতা, যে কলকাতা তিনটে গ্রাম নিয়ে তৈরী হয়েছিল আজ সেই শহর আকারে আয়তনে রোজ একটু একটু করে বড় হচ্ছে তো...

Recent Comments

error: Content is protected !!