সোমবার, মে ১৭, ২০২১
Home country বিষ দিয়ে মারা হচ্ছে মাছ, সঙ্কটে সুন্দরবনের মৎস প্রজাতি

বিষ দিয়ে মারা হচ্ছে মাছ, সঙ্কটে সুন্দরবনের মৎস প্রজাতি

৪১২ Views

বিশ্বজিৎ মান্না

পৃথিবীর বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অরণ্যভূমি সুন্দরবন দীর্ঘদিন ধরেই নানা সঙ্কটে পড়েছে। প্রথমত, সময়ের সাথে সাথে জনবসতি গড়ে তোলার তাগিদে মানুষ বেআইনীভাবে জঙ্গল সাফাই করেছে। সেই সাথে রয়েছে চোরাই কাঠের ব্যবসার জন্য নির্বিচারে অরণ্য নিধন সহ আরও নানা বিপজ্জনক প্রবণতা। জীববৈচিত্রের দিক থেকে সুন্দরবনের জুড়ি মেলা ভার। সুন্দরবনে কয়েকশ প্রজাতির পাখি, গাছগাছালি ছাড়াও রয়েছে পৃথিবী বিখ্যাত রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। সেই সাথে সুন্দরবন মানেই নানা মাছের সমাগম।

কয়েক দশক আগে সুন্দরবনে যেসব মাছ দেখা যেত, তাদের সব আর এখন দেখা য়ায় না। গ্লোবাল ওয়ার্মিং, সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধি সহ অন্যান্য প্রাকৃতিক কারণে এমনিতেই সুন্দরবনের জীববৈচিত্র সঙ্কটের মুখে পড়েছে। তবে সব ক্ষেত্রে প্রাকৃতিক কারণ নয়, সুন্দরবনের বাস্তুতন্ত্রের সর্বনাশে হাত রয়েছে খোদ সুন্দরবনের কিছু মানুষের। এরকমই একটি বিপজ্জনক প্রবণতা হল বিষ দিয়ে মাছ মারা।

বাংলাদেশের সুন্দরবনের নানা এলাকায় এই প্রবণতা দেখা যায়। কয়েক বছর আগে এর তীব্রতা বেশি ছিল। তবে পুলিশ-প্রশাসনের সক্রিয়তায় এখন নজরদারি বেড়েছে। কিন্তু বিষ দিয়ে মাছ মারার মতো ঘৃণ্য কাজ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়নি। সতক্ষীরার বাসিন্দা মহম্মদ সফিউদ্দিন (নিরাপত্তার কারণে আসল নাম প্রকাশ করা সম্ভব নয়) বলেন, সুন্দরবনের মূলত বিভিন্ন খালে বিষ দিয়ে মাছ মারা হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশ এই কাজ করেন। পরে সেই মরা মাছ বাজারে বিক্রি করা হয়।

বিষ দিয়ে মাছ মারার একটি অন্যতম কারণ হল মাছ মারতে বিশেষ পরিশ্রম হয় না। শুধু খালের বা নদীর জলে বিষ ছড়িয়ে দিলেই মাছ মরে উপরে ভেসে ওঠে। খালের একদিকে যখন বিষ দেওয়া হয়, তখন অন্যদিকটি জাল দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়। অর্থাৎ বিষ প্রয়োগ কার পর মাছগুলো সেখান থেকে পালাতে পারে না। তারা জলেই লুটিয়ে পড়ে। নিথর দেহ কিছুক্ষণ পরে জলের উপরে ভেসে ওঠে বা পেতে রাখা জালে আটকে যায়। বিষক্রিয়ায় মারা যাওয়া এই মাছ তারপর পৌঁছে যাচ্ছে বাজারে। চিন্তার বিষয় হল, এই মাছ মানুষের শরীরে নানা ক্ষতি করতে পারে। তবে অসাধু ব্যবসায়ীদের একটি চক্র সব জেনেও এই বিপজ্জনক এবং বেআইনী কারবারে মেতে উঠেছে। বাংলাদেশের সুন্দরবনের বাগেরহাট, সাতক্ষীরা এবং খুলনায় মূলত এই বিষ দিয়ে মাছ মারার প্রবণতা তৈরি হয়েছিল। যদিও পুলিশ-প্রশাসেনর দৌলতে এই প্রবণতা এখন কমেছে। তবে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়নি। বিষ দিয়ে মাছ মারার ফলে মাছের সাথে মাছের পোনাও মারা যাচ্ছে। সেই সাথে অনেক জলজ প্রাণীরও মৃত্যু হচ্ছে। বিশাল সঙ্কটের মুখে সুন্দরবনের বাস্তুতন্ত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে ফের মৃত্যু

শাহীন বিল্লা, সাতক্ষীরাসুন্দরবনে মধু আহরণ করতে গিয়ে বাঘের আক্রমণে রেজাউল ইসলাম নামে এক মৌয়াল নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (১৪ মে) বিকেলে বাংলাদেশের পশ্চিম...

দৈনিক সুন্দরবনের সাংবাদিককে মারধর

দৈনিক সুন্দরবন ওয়েবসাইটের এক সাংবাদিককে মারধর করার অভিযোগ উঠল কুলতলিতে। কোভিড বিধি না মেনে শুক্রবার কুলতলীর রামকৃষ্ণ আশ্রমের কাছে জেটিঘাটে অনেকে ভিড়...

বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দিতে হবে: মোদিকে চিঠি বিরোধীদের

ভারতে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ক্রমশই উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে। হাসপাতালো রুগীর জায়গা নেই। অক্সিজেনের অভাব। ভ্যাকসিনের অভাব। সব মিলিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদেরও রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছে।...

অতিমারির অন্ধকারে ঈদে চাঁদ যেন আশার আলো

সীতাংশু ভৌমিক, ফরিদপুর (বাংলাদেশ) প্রতিবছর ঈদ আসে, পরিযায়ী শ্রমিক-কর্মজীবী মানুষেরা স্বজনদের কাছে ফিরে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ থেকেই...

Recent Comments

error: Content is protected !!