মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০
Home District ভেঙে যাওয়া বাঁধ, ভেঙে যাওয়া স্বপ্ন

ভেঙে যাওয়া বাঁধ, ভেঙে যাওয়া স্বপ্ন

৩৩০ Views

গত বুধবারের সুপার সাইক্লোন আম্ফানে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে উত্তর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ এলাকা। জীবন, জীবিকা হারিয়ে পথে বসেছেন বহু মানুষ। ঝড়ে বিধ্বস্ত এরকমই একটি গ্রাম হল উত্তর ২৪ পরগনার আটপুকুর। মৎসজীবীদের এই গ্রামে বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি মাছ চাষে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিদ্যাধরী নদীর বাঁধ ভেঙে নোনা জল প্রবেশ করেছে জমিতে। মাছ চাষের পাশাপাশি গ্রামবাসীদের  সামনে এখন কৃষিকাজের রাস্তাও বন্ধ।

পুকুর, জলাশয়কে ভাসিয়ে নিয়ে গিয়েছে বিদ্যাধরীর জল। মিষ্টি জলে মিশে গিয়েছে নোনা জল। গ্রামে যত মাছ চাষ করা হয়েছিল, হয় সেগুলি নোনা জলে মারা গেছে, বা জলের স্রোতে ভেসে অন্যত্র চলে গিয়েছে। গ্রামের সমস্ত পুরুষ মিলে নদীবাঁধ অক্ষত রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছেন। গ্রামের বাসিন্দা তথা মৎসজীবী কিষাণ বিহারী মাঝি বলেন, আমাদের বাসস্থান, জীবিকা সব চলে গিয়েছে। যারা মাছের ব্যবসায় রয়েছেন তাদের সব কিছু শেষ হয়ে গিয়েছে। গোবিন্দর মতো মাঝিও অফ সিজনে কলকাতায় দিনমজুরির কাজ করেন। তিনি বলেন, লকডাউনের কারণে আমাদের বাইরের কাজ একদম বন্ধ হয়ে গিয়েছে। শ্রমিকের কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে। মাছ চাষের কাজও বন্ধ। চারিদিকে শুধু ক্ষতি। লকডাউন হোক বা ঝড়।

গ্রামের আর এক মৎসজীবী দীনেশ দাস বলেন, ২০,০০০-এরও অধিক পরিবার সরাসরি মাছ চাষের উপর নির্ভরশীল। এই পরিবারগুলির বিশাল ক্ষতি হয়েছে। আগামী ২০-২৫ বছরে আমরা এই ক্ষতি পূরণ করতে পারব না। দীনেশ জানান, তার ৪০ বিঘার পুকুরে এখন মাছ নেই। শুধু জল রয়েছে। গ্রামের অধিকাংশ মৎসজীবীর ক্ষেত্রে এটাই ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে।

গ্রামের আর এক মৎসজীবী সুপ্রভাত দাস জানিয়েছেন, আমরা যে শুধু মাছ হারালাম এমনটা নয়। মাছের মরসুম চলে যাওয়ার পর আমরা ধান চাষ করতাম। তবে এখন বাঁধ ভেঙে নোনা জল চারিদিকে প্রবেশ করার ফলে আমাদের সেই সুযোগটাও আর রইল না। চারিদিকে এখন শুধু অনুর্বর মাটি। এতে ধান চাষ করা যাবে না।

গ্রামের সার্বিক চিত্র তুলে ধরতে গিয়ে সুপ্রভাত জানান, গ্রামে বাস করা ক্রমশ তাদের পক্ষে কঠিন হয়ে পড়ছে। তিনি বলেন, আমার মনে হয় না জীবনে আমি কোনোদিনও এত ভয় পেয়েছি। সেই সাইক্লোনের রাতে আমি যে ভয় পেয়েছি, জীবনে আমি এর আগে এত ভয় পাইনি। টিন, অ্যাসবেস্টস চারিদিকে উড়ছিল। যেকোনো সময় আমাদের উপর দেওয়াল ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা ছিল। সেই ভয় চলে যাওয়ার পর এখন একটা নতুন ভয় আমাদের জীবনে থাবা বসিয়েছে। সেই ভয় হল জীবিকা সন্ধানের ভয়।

তথ্যঋণ- দ্য ক্যুইন্ট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে মধু এনেও উপযুক্ত দাম পান না সুন্দরবনের মধু সংগ্রহকারীরা

আলামিন ফকির। বয়স বছর কুড়ি। বাংলাদেশের সুন্দরবন এলাকার বাসিন্দা। সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ করার জন্য পাস জোগাড় করতে হয়। সেই জন্য স্থানীয় এক...

এক ওভারে পাঁচ ছক্কা: আইপিএল ২০২০-তে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করলেন রাহুল তেওয়াটিয়া

রবিবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) একটি ম্যাচে শার্জায় মুখোমুখি হয়েছিল রাজস্থান রয়্যালস এবং কিংস ইলেভন পাঞ্জাব। এই ম্যাচে ব্যাটিং দক্ষতার মাধ্যমে চাঞ্চল্য...

করোনা আক্রান্ত পাথরপ্রতিমার বিধায়ক সমীরকুমার জানা, আরোগ্য কামনায় পূজার আয়োজন করল তৃণমূল

বিশ্বজিৎ মান্না পাথরপ্রতিমার বিধায়ক সমীরকুমার জানা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তার দ্রুত আরোগ্য কামনায় বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করল তৃণমূল কংগ্রেস।...

আইপিএল ২০২০: সম্পূর্ণ সূচি, তারিখ, ভেনু

বহু প্রতিক্ষিত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) সূচি ঘোষণা করা হয়েছে। এবারে ভারতের বদলে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে অনুষ্ঠিত হবে আইপিএল। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে...

Recent Comments

error: Content is protected !!