বৃহস্পতিবার, জুন ১৭, ২০২১
Home country করোনার মাঝেই ভূমিকম্পে মৃত ১৪, আহত চার শতাধিক

করোনার মাঝেই ভূমিকম্পে মৃত ১৪, আহত চার শতাধিক

২০৫ Views

শুক্রবার শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে গ্রিস এবং তুরস্কের বিস্তীর্ণ এলাকা। এই ঘটনায় সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী কমপক্ষে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা ৪০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এদের মধ্যে অনেকের অবস্থা গুরুতর। মৃত্যুর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে।

ভূমিকম্পের তীব্রতায় গ্রিস এবং তুরস্কের একাধিক বহুতল ও আবাসিক বাড়ি ভেঙে পড়েছে। স্থানীয় প্রশাসন ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে উদ্ধার কাজে নেমে পড়েছে। ভূমিকম্পের জেরে ছোটো খাটো সুনামিও দেখা যায় সামোসের এইজিয়ান দ্বীপে। সমুদ্রের জলস্তর হঠাৎ করে অনেকটাই বেড়ে যায়। তুরস্কের পশ্চিম উপকূলবর্তী এলাকায় রাস্তায় উঠে আসে সমুদ্রের জল। স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়।

Image courtesy: The Weather Channel

ইউএস জিওলজিক্যাল সার্ভে জানিয়েছে যে এদিন দুই দেশে আছড়ে পড়া ভূমিকম্পের তীব্রতা রিখটার স্কেলে ছিল ৭.০ এবং এটির উৎস স্থল ছিল ১৪ কিলোমিটার দূরে সামোসের কারলোভাসিতে। ভূমিকম্পের জেরে তুরস্কে মূলত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এইজিয়ানের রিসর্ট শহর হিসেবে পরিচিত ইজমির। অনেক বহুতল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইজমির শহরের মেয়র টাঙ্ক সোয়ের সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তার শহরে ২০টি বিল্ডিং ভেঙে পড়েছে। তুরস্কের বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর সূত্রে বলা হয়েছে, সেদেশে ভূমিকম্পে এখনও পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ৪০০-এরও অধিক মানুষ আহত হয়েছেন। অন্যদিকে ভূমিকম্পের জেরে গ্রিস থেকে দুজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। সামোসে এই ঘটনা ঘটেছে। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। ভূমিকম্পের জেরে তাদের উপর দেওয়াল ভেঙে পড়ে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে ভূমিকম্পের জেরে অনেকে মাথা গোঁজার ঠাঁই হারিয়েছেন। তারা বাধ্য হয়ে রাস্তার পাশে আশ্রয় নিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে তুরস্কের মসজিদগুলিতে গৃহহীনদের থাকার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন সেদেশের এক নেতা। ভূমিকম্পের জেরে এদিন স্থানীয় সমুদ্রে সুনামি দেখা যায়। অবশ্য সেটি শক্তিশালী ছিল না। তবুও সামোয়া, ইজমিরের রাস্তায় উঠে আসে সমুদ্রের জল। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। প্রসঙ্গত, গ্রিস এবং তুরস্ক উভয় দেশই ভূমিকম্প প্রবণ এলাকায় অবস্থিত। উভয় দেশ ন্যাটোর সদস্য হলেও তাদের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয়। তবে বর্তমানে এই প্রাকৃতিক দুর্যোগের সামনে দাঁড়িয়ে রাজনৈতিক মতপার্থক্যকে দূরে সরিয়ে রেখে উভয় দেশের নেতারা একসাথে কাজ করুন, এমনটাই চাইছেন উভয় দেশের সাধারণ মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

আমার স্কুল: পাথরপ্রতিমা আনন্দলাল আদর্শ বিদ্যালয়

ইন্দ্রস্কুল প্রায় সবারই কাছেই প্রিয়। স্কুল এমনই একটি জায়গা যেখানে জীবনের শুরুর দিকে একটা বড় অংশ আমরা কাটাই, অনেক নতুন বন্ধু তৈরি...

ঘোড়ামারা: অভিশাপ না প্রশাসনিক অবহেলা? ক্ষয়িষ্ণু দ্বীপে ভাসমান কিছু প্রশ্ন

বিশেষ প্রতিবেদন লিখেছেন প্রত্যয় চৌধুরীজমি নেই, ঘর নেই, বাড়ি নেই। চারিদিকে শুধু জল আর জল! প্রকৃতি যে এরকম নিষ্ঠুর হতে পারে, তা...

নরহরিপুরে ত্রাণ বিলি

দুই সপ্তাহ হতে চলল, এখনও ইয়াস বিধ্বস্ত সমস্ত এলাকায় ক্ষয়ক্ষতিপূরণ পৌঁছায়নি। দক্ষিণ ২৪ পরগণার বেশ কিছু এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে এখনও বিতরণ করা...

ইয়াস: ক্ষতিগ্রস্ত ঘোড়ামারা, পাথরপ্রতিমা বাজারেও ঢুকেছে জল

আম্ফানের পরেই একটি বিধ্বংসী ঝড়ের সাক্ষী হল সুন্দরবন। গত বছরের আম্ফানের মতো এবারও সাইক্লোন ইয়াসে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। নদীবাঁধ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।সুন্দরবনের...

Recent Comments

error: Content is protected !!